সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ধানমন্ডির বসিলায় ওয়েস্ট হাউজিংয়ে বিনা নোটিশে ১৭ টি পরিবারকে উচ্ছেদ জেল থেকে বেরিয়ে ফের শিশু পর্নোগ্রাফি চক্রে, শিশুসাহিত্যিক টিপু সঙ্গীসহ গ্রেফতার ১ম বিয়ে ১০০, ২য় ৫ হাজার, ৩য় ২০ হাজার, ৪র্থ বিয়ে করলে দিতে হবে ৫০ হাজার টাকা কর সিন্ডিকেট ও মজুতদারির বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান হজ নিবন্ধনের সময় বাড়ল ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তুরাগতীরে বৃহত্তম জুমার জামাত অনুষ্ঠিত ঢাকা জেলা প্রেস ক্লাব নির্বাচন শামীম সভাপতি ও ফারুক সাধারণ সম্পাদক পুলিশ হেফাজতে বডি বিল্ডার ফারুকের মৃত্যুর অভিযোগ আদালতে মামলা দায়ের, তদন্তে ডিবি টিআইয়ের দুর্নীতির ধারণাসূচকের প্রতিবেদন অস্পষ্ট: দুদক আড়াই বছরেও কূলকিনারা হয়নি ডা. সাবিরা হত্যাকান্ডের রহস্যের
নোটিশ :
Wellcome to our website...

হ্যাকার চক্র তিন মাসে হাতিয়ে নিয়েছে ৫০ লাখ টাকা

রিপোর্টার / ৫০ বার
আপডেট : সোমবার, ৭ নভেম্বর, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক
সর্বোচ্চ অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে তারা। কিন্তু অল্প শিক্ষিত হলেও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারে তারা ছিল দক্ষ। আর এই দক্ষতাকে তারা প্রতারণারমতো অপরাধমুলক কাজে ব্যবহার করে আসছিল। এমনকি প্রযুক্তির মাধ্যমে কিভাবে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা যায় সে প্রশিক্ষণও নিয়েছে তারা। প্রশিক্ষণ নিয়ে শুধু তিনমাসেই তারা ইমো হ্যাক করে সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে ৫০ লাখ টাকা।
ইমো আইডি হ্যাক করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে এমনই প্রতারক চক্রের ৬ জন ধরা পড়েছে গোয়েন্দা পুলিশের হাতে। গত রোববার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওয়ারী বিভাগ। গ্রেফতারকৃতদের অধিকাংশের বাড়ি রাজশাহী ও নওগাঁ জেলায়।
গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, চক্রটির সদস্যরা নওগাঁ কেন্দ্রিক হলেও তারা ইমো হ্যাকের প্রশিক্ষণ নেয় মাদারীপুরের আরেকটি চক্র থেকে। প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশে-বিদেশের বিভিন্ন ব্যক্তির ইমো আইডি হ্যাক করে লাখ লাখ টাকা অর্থ আত্মসাৎ করে আসছিল। এভাবে তারা গত ২-৩ মাসে ৫০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে।
গ্রেফতারকৃতদের নাম- আব্দুল মমিন, রবিউল ইসলাম ওরফে রবি, শহিদুল ইসলাম ওরফে শহিদ, সাব্বির , চাঁন মোল্লা ও আরিফুল ইসলাম। তাদের কাছ থেকে ১২টি মোবাইল ফোন, হ্যাকিং কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন মোবাইল অপারেটরের ১৯টি সিমকার্ড জব্দ করা হয়।
এব্যাপারে গতকাল সোমবার রাজধানীর ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের প্রধান ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, গত ৯ অক্টোবর রাতে নুরুল ইসলামের বড় ভাই কাতার প্রবাসী কাশেমের ইমো আইডি থেকে একটি মেসেজ আসে। যেখানে বলা হয়, ‘আমার টাকার প্রয়োজন, আমি বিকাশ নম্বর পাঠাইলে টাকা দিও। পরে গত ১০ অক্টোবর দুপুরে নুরুল ইসলামের ইমোতে আরও একটি মেসেজ আসে ‘আজকে বিকাশের রেট কত? ২৫ হাজার টাকা পাঠানো যাবে। এরপর আরও কয়েকটি মেসেজ ও ভয়েজ মেসেজ আসে। ভিকটিম নুরুল ইসলাম সেই মেসেজের ওপর ভিত্তি করে হ্যাকারদের দেওয়া বিকাশ নম্বরে তিনবারে ৬৫ হাজার টাকা পাঠান।
তিনি বলেন, পরে নুরুল তার বড় ভাইয়ের ইমো আইডি বন্ধ পেলে তার ভাবির ইমো আইডি থেকে বড় ভাই আবুল কাশেমকে ৬৫ হাজার টাকা পাঠানোর কথা জানায়। উত্তরে তার বড় ভাই কাতার প্রবাসী কাশেম বলেন, তার ইমো আইডি হ্যাক হয়েছে, আইডিটি তার নিয়ন্ত্রণে নেই। পরে ভিকটিম বুঝতে পারে সুকৌশলে তার কাছ থেকে হ্যাকাররা টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। একই কৌশল অবলম্বন করে গ্রেপ্তার চক্রটি গত তিন মাসে পঞ্চাশ লাখেরও বেশি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা প্রবাসীদের স্বজন ও ঘনিষ্ঠজনদের কাছে থেকে।
পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, ইমো হ্যাক করার জন্য যারা প্রশিক্ষণ দেয় তাদের কয়েকজনকে আমরা চিহ্নিত করতে পেরেছি। তাদের আইনের আওতায় আনার জন্য আমাদের টিম মাঠে কাজ করছে। আশা করছি খুব দ্রুতই তাদের গ্রেফতার করা হবে। #


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর